মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক নবম শ্রেণী জীবন বিজ্ঞান পার্ট ২ । class 9 life science model activity task part 2

নবম শ্রেণীর মডেল  জীবন বিজ্ঞান অ্যাক্টিভিটি টাস্ক প্রশ্ন উত্তর

নবম শ্রেণির ছাত্রছাত্রীদের কথা ভেবেই এই অ্যাক্টিভিটি ট্রাকের প্রশ্ন-উত্তর প্রকাশ করা হলো। সকল ছাত্র-ছাত্রীদের অসংখ্য ধন্যবাদ তোমরা বাড়িতে বসে পড়াশোনা করছো। তোমাদের জন্য এবিভিআরপিডট কম সর্বদা সাহায্যের জন্য প্রস্তুত। 
1. একটি মাইটোকনড্রিয়ার পরিচ্ছন্ন চিত্র অংকন করে নিম্নলিখিত অংশগুলি চিহ্নিত করো: 
বহি পর্দা ,অন্ত পর্দা, অক্সিজোম, ক্রিস্টি


3. নিম্নলিখিত শনাক্তকারী বৈশিষ্ট্য এর ভিত্তিতে  মোনেরা ও প্লান্টি রাজ্যের পার্থক্য লেখ - 
ক) কোষ ও কোষের সংগঠনের প্রকৃতি  খ) বাস্তুতান্ত্রিক ভূমিকা
বৈশিষ্ট মোনেরা প্লান্টি
কোষ ও কোষ সংগঠনের প্রকৃতি মোনেরা পর্বের প্রাণী সরল ,এককোষী ও প্রোক্যারিওটিক কোষ যুক্ত। প্লান্টি পর্বের প্রাণী বহুকোষী ক্লোরোফিল যুক্ত হয়। কোষ প্রোক্যারিওটিক কিংবা ইউক্যারিওটিক হতে পারে।
এই পর্বের প্রাণীদের কোষ প্রাচীর পেপটোগ্লাইক্যান দ্বারা নির্মিত। কোষপ্রাচীর সেলুলোজ নির্মিত।
এই পর্বের প্রাণীদের দেহে পর্দা বেষ্টিত কোষীয় অঙ্গানু থাকে না। কোষে পর্দা বেষ্টিত কোষীয় অঙ্গানু থাকে।
বাস্তুতান্ত্রিক ভুমিকা বাস্তুতন্ত্রে এই পর্বের প্রাণীরা বিয়োজকের ভূমিকা পালন করে। বাস্তুতন্ত্রে অধিকাংশ এই পর্বের জীব উৎপাদকের ভূমিকা পালন করে।

3. হাঙ্গর যে শ্রেণীর অন্তর্গত সেই শ্রেণীর তিনটি বৈশিষ্ট্য উল্লেখ করো 
উত্তর : হাঙ্গর মাছ কনড্রিকথিস শ্রেণীর অন্তর্গত। কনড্রিকথিস শ্রেণীটি কর্ডাটা পর্বের অন্তর্ভুক্ত।

কনড্রিকথিস শ্রেণীর বৈশিষ্ট্য

  • এই শ্রেণীর প্রাণীদের অন্তঃকঙ্কাল তরুণাস্থি নির্মিত।
  • এই শ্রেণীর প্রাণীদের ত্বকে যে আশ থাকে তা অণুবীক্ষণিক নয়। এদের দেহে ডারমাল প্রকৃতির সাইক্লয়েড কিংবা টিনয়েড কিংবা গ্যানয়েড আশ থাকে।
  • এই শ্রেণীর প্রাণীদের মুখছিদ্র থাকে মস্তিষ্কের অঙ্কিয় দেশে অর্থাৎ সামনা সামনি না থেকে নিচের দিকে।
  • এই শ্রেণীর প্রাণীদের দেহে কোন পটকা থাকে না।
  • এই শ্রেণীর প্রাণীদের লেজে অসমান হেটারোসার্কাল প্রকৃতির পাখনা থাকে।

4. সিউডোসিলোম যুক্ত একটি প্রাণীর নাম লেখ এবং ওই প্রাণীটি যে পর্বের অন্তর্গত তার দুটি বৈশিষ্ট্য লেখ

উত্তর : সিউডোসিলোম যুক্ত একটি প্রাণী হল গোলকৃমি।

নিমাটোডা পর্বের প্রাণীদের  বৈশিষ্ট্য


  • নিমাটোডা পর্বের প্রাণীদের দেহে ত্রিস্তর বিশিষ্ট সিউডোসিলোম থাকে।
  • নেমাটোডা পর্বের প্রাণীদের দুটি বৈশিষ্ট্য
  • এই পর্বের প্রাণীদের দেহ নলাকার দ্বিপার্শ্বীয় প্রতিসম এবং দেহে সিউডোসিলোম থাকে।
  • এই পর্বের প্রাণীদের দেহের দুপ্রান্ত ক্রমশ সরু হয়।
  • এই পর্বের প্রাণীরা একলিঙ্গ হয় অর্থাৎ স্ত্রী-পুরুষ ভেদাভেদ আছে।

5.  আরশোলার আর্থোপোডা পর্বের অন্তর্ভুক্তির স্বপক্ষে যুক্তি দাও

উত্তর : আর্থোপোডা পর্বের প্রাণীদের দেহে নিম্নলিখিত বৈশিষ্ট্য দেখা যায় যা আরশোলার দেহতেও দেখা যায়:

  • এই পর্বের প্রাণীদের দেহ খন্ড যুক্ত হয় এবং প্রতি খন্ডকে একজোড়া সন্ধিল উপাঙ্গ থাকে যা আরশোলাতেও বর্তমান।
  • এই পর্বের প্রাণীদের দেহে হিমোসিল বা দেহগহ্বর থাকে যা আরশোলা তেও বর্তমান।
  • এই পর্বের প্রাণীদের রক্ত সংবহনতন্ত্র মুক্ত প্রকৃতির যা আরশোলার ও ।
  • এই পর্বের প্রাণীদের অধিকাংশ ক্ষেত্রেই পুঞ্জাক্ষি থাকে এবং আরশোলার ক্ষেত্রেও পুঞ্জাক্ষি দেখা যায়।

6. মানবদেহে ভিটামিন-A ও ভিটামিন-D এর ভূমিকা উল্লেখ করো

মানব দেহে ভিটামিন A এর ভূমিকা


  • ভিটামিন A চোখের রেটিনার রড কোষ গঠনে সাহায্য করে এবং রাতকানা রোগ প্রতিরোধ করে।
  • ভিটামিন A জারণ প্রতিরোধ করে অর্থাৎ সহজে বৃদ্ধ হতে দেয় না।
  • ভিটামিন A ত্বক চকচকে রাখে তাই একে গ্ল্যামার ভিটামিন ও বলা হয়।
  • ভিটামিন A স্নায়ু কলার পুষ্টি ও কার্যকারিতা নিয়ন্ত্রণ করে।

মানব দেহে ভিটামিন D এর ভূমিকা

  • ভিটামিন D অস্থি ও দাঁত গঠন ও শক্ত করতে সাহায্য করে।
  • ভিটামিন D রিকেট রোগ প্রতিরোধ করে।
  • ভিটামিন D ক্যালসিয়াম ও ফসফরাস শোষণে সাহায্য করে।

8. ভাজক কলার বৈশিষ্ট্য লেখ

  • ভাজক কলার কোষ গুলি ছোট হয় এবং কোষগুলি গোলাকার ডিম্বাকার বা বহুভুজ আঁকা হয়।
  • ভাজক কলার কোষগুলির কোষপ্রাচীর পাতলা হয়।
  • ভাজক কলার কোষ গুলি ঘন সাইটোপ্লাজম পূর্ণ এবং বড় ও স্পষ্ট নিউক্লিয়াস যুক্ত।
  • এই কলার কোষ গুলি অপরিণত এবং সব সময় বিভাজিত হয়ে অপত্য কোষ সৃষ্টি করে।
  • কোষ গুলিতে সাধারণত ভ্যাকুওল থাকে না।