অষ্টম শ্রেণি ভূগোল প্রথম অধ্যায় পৃথিবীর অন্দরমহল প্রশ্ন উত্তর | Class VIII geography Chapter 1 internal structure of Earth

অষ্টম শ্রেণি ভূগোল প্রথম অধ্যায় পৃথিবীর অন্দরমহল প্রশ্ন উত্তর | Class VIII geography Chapter 1 | ভূত্বক - গুরুমন্ডল - কেন্দ্রমণ্ডল - বিযুক্তি রেখা

তুমি কি অষ্টম শ্রেণীতে পড়ো ? তোমার কি ভূগোল পড়তে ভালো লাগে ? তাহলে এই পোস্ট তোমার জন্য। 

এখানে তুমি পাবে অষ্টম শ্রেণীর ভূগোলের প্রথম অধ্যায় পৃথিবীর অন্দরমহল এর সমস্ত খুঁটিনাটি প্রশ্ন ও তার উত্তর। এই প্রশ্ন উত্তরগুলি পড়লে তোমার পাঠ্য বই  আমাদের পৃথিবী - এর প্রথম অধ্যায় - পৃথিবীর অন্দরমহল - এর  প্রায় সব প্রশ্নের উত্তর জানা হয়ে যাবে।

অভিজ্ঞ শিক্ষক দ্বারা এই প্রশ্ন ও উত্তর লেখা হয়েছে । পরপর  পৃথিবীর অন্দরমহল অধ্যায়ের প্রশ্ন–উত্তর পাঠ্যবই অনুযায়ী যাতে তোমরা সহজেই পড়ে তা মনে রাখতে পারো সেই ভাবেই ক্রমানুসারে লেখা হয়েছে । 

Thumbnail - Class VIII geography Chapter 1


অষ্টম শ্রেণি ভূগোল প্রশ্ন উত্তর

প্রথম অধ্যায় – পৃথিবীর অন্দরমহল

1. পৃথিবীর ব্যাসার্ধ কত?

উত্তর – পৃথিবীর ব্যাসার্ধ প্রায় ৬৩৭০ কিলোমিটার।

2. ভূপৃষ্ঠ থেকে পৃথিবীর কেন্দ্রের দূরত্ব কত?

উত্তর – ভূপৃষ্ঠ থেকে পৃথিবীর কেন্দ্রের দূরত্ব প্রায় ৬৩৭০ কিলোমিটার।

3.পৃথিবীর গভীরতম খনি কোনটি ?

উত্তর – দক্ষিণ আফ্রিকার রবিনসন ডীপ হলো পৃথিবীর গভীরতম খনি। এর গভীরতা প্রায় 3 থেকে 4 কিলোমিটার।

4. প্রতি ৩৩ মিটার গভীরতায় পৃথিবীর অভ্যন্তরের তাপমাত্রা কি পরিমান বৃদ্ধি পায়?

উত্তর – প্রায় 1° সেন্টিগ্রেড হারে বৃদ্ধি পায়।

5. পৃথিবীর গভীরতম কৃত্রিম গর্ত কোথায় অবস্থিত? এর গভীরতা কত?

উত্তর – পৃথিবীর গভীরতম কৃত্রিম গর্ত রাশিয়ার কোলা উপদ্বীপে অবস্থিত । 

▣ এর গভীরতা ১২ কিমি।

6. পৃথিবীর অন্দরমহল সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করা কঠিন কেন?

উত্তর –  পৃথিবীর অন্দরমহলে প্রতি 33 মিটার গভীরতায় এক ডিগ্রি সেলসিয়াস হারে তাপমাত্রা বাড়তে থাকে। তাই পৃথিবীর অন্দরমহলে মানুষের পক্ষে যাওয়া সম্ভব নয়। তাছাড়া উন্নত মানের অনেক যন্ত্রপাতিও পৃথিবীর কেন্দ্রের তাপমাত্রায় গলে যায়। এই কারণে পৃথিবীর অন্দরমহল এর তথ্য সংগ্রহ করা কঠিন।

7. পৃথিবী কবে সৃষ্টি হয়েছিল?

উত্তর – পৃথিবী সৃষ্টি হয়েছিল আজ থেকে প্রায় 460 কোটি বছর আগে।

8. ম্যাগমা কি ? 

উত্তর – ভূগর্ভের পদার্থ প্রচন্ড চাপ ও তাপে গ্যাস বাষ্প মিশ্রিত হয়ে গলিত অবস্থায় থাকে। একেই মাগমা বলে।

9. লাভা কি ?

উত্তর – ভূগর্ভের গলিত উত্তপ্ত অর্ধ তরল মেঘনা ভূপৃষ্ঠের ফাটল দিয়ে যখন বাইরে বেরিয়ে আসে তখন তাকে লাভা বলা হয়।

10. উষ্ণপ্রস্রবণ কাকে বলে?

পৃথিবীর ভৌম জল ভূতাপের সংস্পর্শে এসে গরম হয়ে ফুটতে শুরু করে। পৃথিবীপৃষ্ঠের ফাটলের মধ্য দিয়ে সেই উষ্ণ জল বাইরে বেরিয়ে আসে। একে উষ্ণ প্রস্রবণ বলে।

11. পশ্চিমবঙ্গের কোথায় উষ্ণ প্রস্রবণ রয়েছে?

উত্তর – পশ্চিমবঙ্গের বক্রেশ্বরে উষ্ণপ্রস্রবণ রয়েছে।

12. পৃথিবীর মধ্যে সবথেকে বেশি ভূতাপ শক্তি থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন করে কোন দেশ?

উত্তর – আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্র।

13. আইসল্যান্ডের বিদ্যুৎ চাহিদার শতকরা কত শতাংশ ভূ–তাপ থেকে উৎপাদন করা হয়?

উত্তর – 30 শতাংশ ।

14. পৃথিবীর গড় ঘনত্ব কত?

উত্তর – পৃথিবীর গড় ঘনত্ব 5.5 গ্রাম/ঘন সেমি ।

15. পৃথিবীর কেন্দ্রের কাছের পদার্থের গড় ঘনত্ব কত?

উত্তর – পৃথিবীর কেন্দ্রের কাছে পদার্থের গড় ঘনত্ব প্রায় 11 গ্রাম /ঘন সেমি।

16. পৃথিবীর কেন্দ্রের গড় ঘনত্ব কত?

উত্তর – পৃথিবীর কেন্দ্রের গড় ঘড়ত্ব 13 – 14 গ্রাম / ঘন সেমি।

17. পৃথিবীর কেন্দ্রের কাছে থাকা পদার্থ গুলোর ঘনত্ব বেশি হয় কেন?

উত্তর – পৃথিবীর গঠনগত উপাদান গুলির মধ্যে ভারী পদার্থ গুলো পৃথিবীর জন্মের সময় অভিকর্ষের টানে পৃথিবীর কেন্দ্রের দিকে চলে যায়। বিশেষত লোহা, নিকেল ইত্যাদি পৃথিবীর কেন্দ্রের চারদিকে আবর্তন করতে থাকে। অপেক্ষাকৃত হালকা পদার্থ যেমন অ্যালুমিনিয়াম, সিলিকন ইত্যাদি ওপরের দিকে ভেসে ওঠে। তাই পৃথিবীর কেন্দ্রের কাছে থাকা পদার্থ গুলোর ঘনত্ব বেশি হয়।

18. বিজ্ঞানীরা কিভাবে পৃথিবীর অভ্যন্তর সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করেছেন?

উত্তর – বিজ্ঞানীরা ভূমিকম্পের তরঙ্গের গতিবিধি ও আগ্নেয়গিরির জ্বালামুখ থেকে বেরোন লাভা পর্যবেক্ষণ করে পৃথিবীর অভ্যন্তর সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করেছেন।

19. ভূমিকম্পের কোন তরঙ্গ কেবলমাত্র কঠিন মাধ্যমের মধ্য দিয়ে যেতে পারে?

উত্তর – S তরঙ্গ।

20. ভূমিকম্পের P তরঙ্গ কোন কোন মাধ্যমের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হতে পারে?

উত্তর – ভূমিকম্পের P তরঙ্গ সব রকম মাধ্যমের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হতে পারে।

21. Journey to the Centre of the earth – বইটি কার লেখা?

উত্তর – জুল ভার্নের লেখা।

22. পৃথিবীর অভ্যন্তর ভাগ কয়টি স্তরে বিভক্ত ও কি কি?

উত্তর – পৃথিবীর অভ্যন্তর ভাগ তিনটি স্তরে বিভক্ত । যথা: (i) ভূত্বক (ii) গুরুমন্ডল (iii) কেন্দ্রমন্ডল।

▣  পৃথিবীর অভ্যন্তরের চিহ্নিত চিত্র অঙ্কন কর ও বিভিন্ন স্তর ও বিযুক্তি রেখা গুলি দেখাও।

পৃথিবীর অভ্যন্তরের চিহ্নিত চিত্র

ভূত্বক – পৃথিবীর অন্দরমহল

23. মহাসাগরের নিচে ভূত্বকের গভীরতা কত?

উত্তর – মহাসাগরের নিচে ভূত্বকের গভীরতা ৫ কিমি।

24. মহাদেশের নিচে ভূত্বকের গভীরতা কত?

উত্তর – মহাদেশের নিচে ভূত্বকের গভীরতা ৬০ কিমি।

25. ভূত্বকের গড় গভীরতা কত?

উত্তর – ভূত্বকের গড় গভীরতা ৩০ কিমি।

26. SIMA ( সিমা ) কাকে বলে ?

উত্তর – মহাসাগরের নিচে ভূত ত্বক প্রধানত সিলিকন (Si) আর ম্যাগনেসিয়াম (Mg) দিয়ে গঠিত। তাই উপাদানের নাম অনুযায়ী এই স্তরকে SIMA ( সিমা ) বলে।

27. SIMA ( সিমা ) স্তরটি কোন শিলা দ্বারা গঠিত?

উত্তর – SIMA ( সিমা ) ব্যাসল্ট শিলা দ্বারা গঠিত।

28. SIMA ( সিমা ) স্তরের আরেক নাম কি?

উত্তর – SIMA ( সিমা ) স্তরের আরেক নাম মহাদেশীয় ভূত্বক।

29. SIAL ( সিয়াল ) কাকে বলে?

উত্তর – মহাদেশের নিচে ভূত চাপ প্রধানত সিলিকন (Si) আর অ্যালুমিনিয়াম (Al)  দিয়ে তৈরি। এই স্তরটিকে SIAL ( সিয়াল ) বলে।

30. SIAL ( সিয়াল ) স্তরটি কোন শিলা দ্বারা গঠিত?

উত্তর – SIAL ( সিয়াল ) স্তরটি গ্রানাইট শিলা দ্বারা গঠিত।

31. SIAL ( সিয়াল ) স্তরের আরেক নাম কি?

উত্তর – SIAL ( সিয়াল ) স্তরের আরেক নাম মহাসাগরীয় ভূত্বক।

32. সিয়াল ও সিমা স্তরের মাঝে কোন বিযুক্তি রেখা রয়েছে?

উত্তর – সিয়াল ও সিমা স্তরের মাঝে কনরাড বিযুক্তি রেখা রয়েছে।

33. ভূত্বকের শতকরা কত শতাংশ অক্সিজেন?

উত্তর – ভূত্বকের শতকরা ৪৭ শতাংশ অক্সিজেন।

34. ভূত্বকের প্রধান উপাদান কি?

উত্তর – ভূত্বকের প্রধান উপাদান হল অক্সিজেন।

35. ভূত্বকের দ্বিতীয় প্রধান উপাদান কি?

উত্তর – ভূত্বকের দ্বিতীয় প্রধান উপাদান হলো সিলিকন।

36. বিযুক্তি রেখা কাকে বলে?

উত্তর – ভূপৃষ্ঠ থেকে কেন্দ্র পর্যন্ত যেখানে যেখানে ভূমিকম্পের তরঙ্গের গতিবেগ পরিবর্তিত হয় সেই স্থানকে ভূতত্ত্ববিদরা বিযুক্তি রেখা আখ্যা দিয়েছেন।

বিযুক্তি রেখা সম্পর্কে বিস্তারিত ও পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে আমরা এর পূর্বে আলোচনা করেছি । পোস্ট : বিযুক্তি রেখা কাকে বলে । বিভিন্ন প্রকার বিযুক্তি রেখার বর্ণনা

গুরুমন্ডল – পৃথিবীর অন্দরমহল

37. ভূত্বকের নিচের স্তরটি কি?

উত্তর –  ভূত্বকের নিচের স্তরটি হল গুরুমন্ডল বা ম্যান্টল।

38. গুরুমন্ডলের বিস্তৃতি কত?

উত্তর –  ভূত্বকের নিচ থেকে পৃথিবীর অভ্যন্তরে প্রায় 2900 কিমি পর্যন্ত গুরুমন্ডল বিস্তৃত।

39. গুরুমন্ডলের গড় ঘনত্ব কত?

উত্তর – গুরুমন্ডলের গড় ঘনত্ব প্রায় 3.4 থেকে 5.7 গ্রাম/ ঘন সেমি।

40. গুরুমন্ডলের প্রধান উপাদান কি?

উত্তর – গুরুমন্ডল এর প্রধান উপাদান হল লোহা,  নিকেল,  ক্রোমিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম ও সিলিকন।

41. ক্রোফেসিমা ( Crofesima ) কাকে বলে?

উত্তর – গুরুমন্ডলের 30 – 700 কিমি পর্যন্ত প্রধান উপাদান হলো ক্রোমিয়ম (Cr),  লোহা (Fe),  সিলিকন (Si) ও ম্যাগনেসিয়াম (Mg) । এই গঠনগত উপাদানের নাম অনুযায়ী একে ক্রোফেসিমা ( Crofesima ) বলা হয়।

42. নিফেসিমা ( Nifesima ) কাকে বলে?

উত্তর – গুরুমন্ডলের 700 – 290 কিমি পর্যন্ত প্রধান উপাদান হলো নিকেল (Ni),  লোহা (Fe),  সিলিকন (Si) ও ম্যাগনেসিয়াম (Mg) । এই গঠনগত উপাদানের নাম অনুযায়ী একে নিফেসিমা ( Nifesima ) বলা হয়।

43. ভূত্বক ও গুরুমন্ডলের মাঝে কোন বিযুক্তি রেখা রয়েছে?

উত্তর – ভূত্বক ও গুরুমন্ডল এর মাঝে মোহোরিভিসিক বা মোহো বিযুক্তি রেখা রয়েছে।

44. শিলামন্ডল কাকে বলে ? এর গভীরতা কত?

উত্তর – ভূত্বক ও গুরুমন্ডল এর উপরি অংশকে একত্রে শিলামন্ডল বলে।

শিলামন্ডলের গভীরতা প্রায় ১০০ কিমি।

45. শিলামন্ডলের নিচে গুরুমন্ডলের উপরের অংশটিকে কি বলে?

উত্তর – অ্যাস্থেনোস্ফিয়ার বলে।

46. অ্যাস্থেনোস্ফিয়ার কথাটির অর্থ কি?

উত্তর – গ্রিক শব্দ অ্যাস্থেনোস্ফিয়ার কথাটির অর্থ হলো দুর্বল স্তর।

47. ভূ অভ্যন্তরের কোন স্তরে পরিচলন স্রোত সৃষ্টি হয়?

উত্তর – অ্যাস্থেনোস্ফিয়ার পরিচলন স্রোত সৃষ্টি হয়।

48. অ্যাস্থেনোস্ফিয়ারের পদার্থ গুলি কি রূপে অবস্থান করে?

উত্তর – অ্যাস্থেনোস্ফিয়ার পদার্থ গুলি গলিত ও নরম প্রকৃতির হয়। অত্যাধিক তাপ ও চাপে এখানকার শিলা অর্ধ তরল ও অর্ধ কঠিন অবস্থায় থাকে। পিচ গলালে বা খেজুরের রস জাল দিয়ে গুড় তৈরি করলে যে অবস্থায় থাকে ঠিক সেই অবস্থায়।

কেন্দ্রমণ্ডল – পৃথিবীর অন্দরমহল

49. কেন্দ্রমন্ডল এর গভীরতা কত?

উত্তর – পৃথিবীর কেন্দ্রমন্ডলের গভীরতা প্রায় 3500 কিমি।

50. কেন্দ্র মন্ডলের অপর নাম কি এবং কেন?

উত্তর – কেন্দ্রমণ্ডল প্রধানত অত্যন্ত ভারী নিকেল (Ni)  ও লোহা (Fe) দিয়ে তৈরি। তাই কেন্দ্র মন্ডলের অপর নাম নিফে (NIFE) ।

51. কেন্দ্রমন্ডলের গড় তাপমাত্রা কত?

উত্তর – কেন্দ্র মন্ডলের গড় তাপমাত্রা ৫০০০ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

52. কেন্দ্রমন্ডলের গড় ঘনত্ব কত?

উত্তর – কেন্দ্র মন্ডলের গড় ঘনত্ব প্রায় ৯.১ থেকে ১৩.১ গ্রাম / ঘন সেমি।

53. কেন্দ্রমন্ডল কয় ভাগে বিভক্ত ও কি কি?

উত্তর – কেন্দ্রমন্ডল দুই ভাগে বিভক্ত যথা (i) অন্তঃকেন্দ্র মন্ডল ও (ii) বহি কেন্দ্র মন্ডল।

54. অন্তঃকেন্দ্রমণ্ডলের গভীরতা কত?

উত্তর – অন্তঃকেন্দ্রমণ্ডলের গভীরতা ৫১০০ কিমি থেকে প্রায় ৬৩৭০ কিমি।

55. বহিঃকেন্দ্রমণ্ডল গভীরতা কত?

উত্তর – বহিঃকেন্দ্রমণ্ডল গভীরতা ২৯০০ কিমি থেকে 5100 কিমি।

56. গুরুমন্ডল ও কেন্দ্রমন্ডল এর মাঝে কোন বিযুক্তি রেখা রয়েছে?

উত্তর – গুরুমন্ডল ও কেন্দ্রমন্ডল এর মাঝে গুটেনবার্গ বিযুক্তি রেখা রয়েছে।

57. অন্তঃকেন্দ্রমণ্ডল ও বহিঃকেন্দ্রমণ্ডলের মাঝে কোন বিযুক্তি রেখা রয়েছে?

উত্তর – লেহমান বিযুক্তি রেখা রয়েছে।



উপসংহার : তাহলে আশা করি তোমাদের এই পৃথিবীর অন্দরমহল অধ্যায়ের প্রশ্ন–উত্তর ভালো লেগেছে। যেকোনো ধরনের প্রশ্ন উত্তর কিংবা মকটেস্ট এর অনুরোধ করার জন্য আমাদের কন্টাক্ট করো।

তথ্যসুত্র - আমাদের পৃথিবী - মধ্য শিক্ষা পর্ষদ ( অষ্টম শ্রেণী ভূগোল পাঠ্য বই ) 

About the Author

Teacher , Blogger, Edu-Video Creator, Web & Android App Developer, Work under Social Audit WB Govt.

1 comment

  1. শিয়াল ও সীমা কী
Please Comment , Your Comment is Very Important to Us.

All Chapter Contents

Cookie Consent
We serve cookies on this site to analyze traffic, remember your preferences, and optimize your experience.
Oops!
It seems there is something wrong with your internet connection. Please connect to the internet and start browsing again.
AdBlock Detected!
We have detected that you are using adblocking plugin in your browser.
The revenue we earn by the advertisements is used to manage this website, we request you to whitelist our website in your adblocking plugin.
Site is Blocked
Sorry! This site is not available in your country.