[ Class VI ] Chapter 4 question answer | শিলা ও খনিজ পদার্থ

Class 6 chapter 4 question answer | ষষ্ঠ শ্রেণির চতুর্থ অধ্যায় শিলা ও খনিজ পদার্থ প্রশ্ন উত্তর। ক্লাস সিক্স পরিবেশ ও বিজ্ঞান
A. নিচের প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও।
(1)রেল লাইনের কালো পাথর কি ধরনের শিলা?
উত্তর : ব্যাসল্ট।
(2)আগ্নেয়গিরি থেকে উঠে আসা লাভা শক্ত হয়ে কোন শিলা তৈরি হয়?
উত্তর : আগ্নেয় শিলা।
(3)মাটির যত গভীরে যাওয়া যায় চাপ ও উষ্ণতার কি পরিবর্তন হয়?
উত্তর : চাপ এবং উষ্ণতা বাড়ে।
(4)পৃথিবীর গভীরের তরল অবস্থায় থাকা পাথর কে কি বলে?
উত্তর : ম্যাগমা।
(5)লাভা কাকে বলে?
উত্তর : গলিত ম্যাগমা কোন পাথরের ফাটল বা পাহাড়ের মুখ দিয়ে বেরিয়ে আসলে তাকে লাভা বলে।
(6)জমাট বাধা লাভাই হল _____
উত্তর : আগ্নেয় শিলা
(7)পিউমিস পাথরের আরেক নাম কি?
উত্তর : ঝামা পাথর
(8)পিউমিস পাথরের ছিদ্র থাকে কেন?
উত্তর : উত্তপ্ত ম্যাগমার উপরে ফেনার মতো অংশ তাড়াতাড়ি জমে গিয়ে পিউমিস তৈরি হয়। তরল ম্যাগমায় দ্রবীভূত গ্যাস ম্যাগমার মধ্যে দিয়ে বেরোনোর সময় পিউমিস পাথরে ওই ছিদ্র সৃষ্টি হয়।
(9) _____ শব্দ থেকে পাললিক শব্দটি এসেছে।
উত্তর : পলি
(10)পাললিক শিলা তৈরি হতে _____ বছর সময় লাগে।
উত্তর : লক্ষ লক্ষ
(11)কোন শিলায় জীবাশ্ম বা ফসিল দেখা যায়?
উত্তর : পাললিক শিলায়।
(12)পাললিক শিলার তিনটি উদাহরণ দাও
উত্তর : বেলে পাথর, শেল ও চুনাপাথর
(13)পৃথিবীর ওপরের পিঠের বেশিরভাগটাই কোন কোন শিলা দ্বারা গঠিত?
উত্তর : আগ্নেয় ও পরিবর্তিত শিলা।
(14)মার্বেল পাথর কি ধরনের শিলা?
উত্তর : পরিবর্তিত শিলা।
(15)কোন শিলা পরিবর্তিত হয়ে মার্বেল পাথর তৈরি হয়?
উত্তর : চুনাপাথর।
(16)কোন শিলা পরিবর্তিত হয়ে স্লেট পাথর তৈরি হয়?
উত্তর : শেল
(17)গ্রানাইট এর পরিবর্তনে কোন শিলা তৈরি হয়?
উত্তর : নিস
(18)ব্যাসল্ট ছিলা কোন শিলায় রূপান্তরিত হয়?
উত্তর : অ্যামফিবোলাইট
(19)পুরনো তামার বাসনপত্রে কেমন ছোপ ধরে?
উত্তর : সবুজ
(20)প্রকৃতিতে সোনাকে কি হিসাবে পাওয়া যায়?
উত্তর : মৌল হিসাবে
(21)প্রকৃতিতে সোনার আকরিক পাওয়া যায় না কেন?
উত্তর : সোনা খোলা হাওয়ায় বিক্রিয়া করে না। সোনা খোলা হাওয়ায় পড়ে থাকলে কোন পরিবর্তন দেখা যায় না। তাই সোনাকে মৌল অবস্থায় পাওয়া যায়।
(22)ধাতুর খনিজ কাকে বলে?
উত্তর : প্রকৃতিতে বিভিন্ন ধাতুর নানান যৌগ বালি মাটি ইত্যাদি সঙ্গে মিশে থাকা অবস্থায় পাওয়া যায়। এদের ধাতুর খনিজ বা মিনার‍্যাল বলে। যেমন বক্সাইট, হেমাটাইট ইত্যাদি।
(23)ধাতুর আকরিক কাকে বলে?
উত্তর : খনিজ থেকে ধাতুকে সহজে ও কম খরচে নিষ্কাশন করা গেলে সেই খনিজকে আকরিক বলে। যেমন বক্সাইট, কপার গ্লান্স।
(24)"সব আকরিক-ই খনিজ কিন্তু সব খনিজ আকরিক নয়" - কেন ব্যাখ্যা কর।
উত্তর : আকরিক মাত্রই খনিজ পদার্থ কারণ খনিতে পাওয়া যায়। সব খনিজ থেকে সহজে ধাতু নিষ্কাশন করা যায় না তাই সব খনিজ আকরিক নয়।
(25)খনিজ এর আরেক নাম কি?
উত্তর : ওর (Ore)
(26)লোহার প্রধান আকরিকের নাম কি?
উত্তর : হেমাটাইট
(27)অ্যালুমিনিয়ামের আকরিকের নাম কি?
উত্তর : বক্সাইট
(28)তামার প্রধান আকরিকের নাম কি?
উত্তর : কপার গ্লান্স
(29)সংকর ধাতু কাকে বলে? উদাহরণ দাও।
উত্তর : কোন ধাতুর সঙ্গে অন্য ধাতু বা অধাতু মিশিয়ে যে মিশ্রণ তৈরি করা হয় তাকে সংকর ধাতু বলে। যেমন - কাসা, ব্রোঞ্জ, গয়নার সোনা, পিতল, ইস্পাত ইত্যাদি।
(30)লোহার সঙ্গে সামান্য _____ মিশিয়ে ইস্পাত তৈরি করা হয়।
উত্তর : কার্বন
(31)ইস্পাত লোহার চেয়ে _____
উত্তর : শক্তিশালী
(32)লোহার সঙ্গে _____ মিশিয়ে স্টেনলেস স্টিল তৈরি হয়।
উত্তর : ক্রোমিয়াম
(33)লোহার সঙ্গে _____ মেশালে লোহার রাসায়নিক বিক্রিয়া করার ক্ষমতা কমে যায়।
উত্তর : ক্রোমিয়াম
(34)ফিউজ তার হলো এক ধরনের _____
উত্তর : সংকর ধাতু
(35)কি কি ধাতু মিশিয়ে ফিউজ তার তৈরি হয়?
উত্তর : সীসা ও টিন
(36)ধাতুর জিনিস জোড়া দেওয়ার জন্য কোন সংকর ধাতু ব্যবহার হয়?
উত্তর : রাংঝাল
(37)সত্য মিথ্যা লেখ: লুপ্ত হয়ে যাওয়া প্রাণীর পায়ের ছাপকেও ফসিল বলা হয়।
উত্তর : সত্য
(38)"অশ্ম" কথার অর্থ কি?
উত্তর : পাথর
(39)কোন শিলায় জীবাশ্ম দেখা যায়?
উত্তর : পাললিক শিলায়
(40)কিভাবে জীবাশ্ম তৈরি হয়েছে?
উত্তর : অনেক কোটি বছর আগের প্রাণীরা মারা যাওয়ার পর মাটিতে বা জলের নিচে পড়ে থাকতে থাকতে এদের দেহাবশেষে নানান পরিবর্তন ঘটতে লাগলো। দেহের নরম অংশ গুলো নষ্ট হয়ে গেল। তারপর পড়ে থাকা অংশের উপর পলি জমতে লাগলো। কোটি কোটি বছর ধরে নানান পরিবর্তনের মধ্যে দিয়ে তা পাথরে পরিণত হলো।
(41)জীবাশ্ম জ্বালানি কাকে বলে? উদাহরণ দাও
উত্তর : জীবদেহ পচে যে জ্বালানি তৈরি হয় তাকেই জীবাশ্ম জ্বালানি বলে। যেমন কয়লা, পেট্রোলিয়াম, প্রাকৃতিক গ্যাস।
(42)সত্য মিথ্যা লেখ: কয়লা হলো এক ধরনের জীবাশ্ম জ্বালানি।
উত্তর : সত্য
(43)দুটি এমন জ্বালানির উদাহরণ দাও যা জীবাশ্ম জ্বালানি নয়।
উত্তর : খড়, কাঠ ইত্যাদি।
(44)ভারতের সবথেকে বেশি কোন কাজে কয়লা ব্যবহার করা হয়?
উত্তর : বিদ্যুৎ উৎপাদনে।
(45)পেট্রোলিয়াম কি ধরনের মিশ্রণ?
উত্তর : পেট্রোলিয়াম হল চটচটে তরল মিশ্রণ।
(46)LPG এর পুরো কথা কি?
উত্তর : লিকুইফায়েড পেট্রোলিয়াম গ্যাস।
(47)CNG এর পুরো কথা কি?
উত্তর : কম্প্রেসড ন্যাচারাল গ্যাস।
(48)CNG ও LPG এর মধ্যে কোনটি কম বায়ু দূষণ ঘটায়?
উত্তর : CNG
(49)প্রাকৃতিক গ্যাসের প্রধান উপাদান কি?
উত্তর : মিথেন
(50)গন্ধের জন্য LPG গ্যাসের সঙ্গে কি মেশানো হয়?
উত্তর : ইথাইল মারক্যাপটান

1 জমাট বাধা লাভাই হলো –
আগ্নেয় শিলা
পাললিক শিলা
পরিবর্তিত শিলা
কোনোটিই নয়
জমাট বাধা লাভা হলো আগ্নেয় শিলা। এইজন্য এই শিলা শক্ত হয় এবং এই শিলায় কোন স্তর থাকে না।
2 ম্যাগমায় দ্রবীভূত গ্যাস ম্যাগমার মধ্যে দিয়ে গ্যাস বেরোনোর সময় কোন শিলায় ছিদ্র তৈরি করে?
গ্রানাইট
ব্যাসল্ট
পিউমিস
মার্বেল
লাভার উপরের ফেনার মত অংশ জমাট বেঁধে পিউমিস পাথর তৈরি হয়। ম্যাগমা থেকে গ্যাস বেরোনোর সময় পিউমিস পাথরের ছিদ্র সৃষ্টি হয়।
3 কোন পাথরকে ঝাঁমা পাথর বলে?
গ্রানাইট
ব্যাসল্ট
স্লেট পাথর
পিউমিস
4 মাটির নিচে পলি জমে গরমে আর চাপে লক্ষ লক্ষ বছরধরে পলি জমাট বেঁধে কোন শিলা তৈরি হয়?
আগ্নেয় শিলা
পাললিক শিলা
পরিবর্তিত শিলা
স্লেট শিলা
5 পৃথিবীর ওপরের পিঠের বেশিরভাগটাই –
আগ্নেয় ও পাললিক শিলা
আগ্নেয় ও পরিবর্তিত শিল
পাললিক ও পরিবর্তিত শিলা
কেবল আগ্নেয় শিলা
6 পাললিক শিলা হলো –
গ্রানাইট
ব্যাসল্ট
পিউমিস
বেলে পাথর
7 গ্রানাইট পরিবর্তিত হয়ে কোন শিলা তৈরি হয়?
মার্বেল
নিস
স্লেট
চুনাপাথর
8 কয়লার প্রধান ব্যবহার –
বিদ্যুৎ তৈরিতে
জ্বালানি হিসাবে
আলকাতরা তৈরিতে
সাবান তৈরিতে
9 LPG গ্যাসের প্রধান উপাদান
মিথেন
বিউটেন
জল ও প্রোপেন
প্রোপেন ও বিউটে
10 পেট্রোলিয়াম শোধন করে পাই –
কেরোসিন ও ডিজেল
পেট্রোল ও ডিজেল
পেট্রোল ও LPG
সবকটিই
11 পেট্রোলিয়াম হল খুব চটচটে জটিল
ধাতু
মিশ্রণ
গ্যাসীয় পদার্থ
শিলা
12 কোনটি জীবাশ্ম জ্বালানি নয়?
কয়লা
প্রাকৃতিক গ্যাস
পেট্রোলিয়াম
খড়
13 কালো হীরে হলো
সোনা
কয়লা
তামা
অভ্র
14 তরল সোনা হল
জিংক
তামা
নিকেল
পেট্রোলিয়াম
15 মোটর বাইকে জ্বালানি রূপে ব্যবহৃত হয়
পেট্রোল
ডিজেল
প্রোপেন
বিউটেন
16 বাস বা ট্রাকে ব্যবহৃত জ্বালানি হলো
পেট্রোল
ডিজেল
ইথিলিন
প্রোপেন
17 সবচেয়ে উৃকৃষ্ট মানের কয়লাটি হল
অ্যান্থ্রাসাইট
বিটুমিনিয়াস
লিগনাইট
পিট
18 শিলা গঠনকারী প্রধান উপাদান
লোহা
তামা
নিকেল
খনিজ
19 গৃহস্থালির বাসনপত্র নির্মাণে ব্যবহৃত হয়
তামা
লোহা
অ্যালুমিনিয়াম
জিংক
20 এদের মধ্যে কোনটি ধাতুকল্প?
আর্গন
গ্রাফাইট
আয়োডিন
আর্সেনিক।
যার মধ্যে ধাতু ও অধাতু উভয়ের গুন থাকে তাকে ধাতুকল্প বলে। যেমন আর্সেনিক, অ্যান্টিমনি ইত্যাদি।
21 সিমেন্ট তৈরিতে ব্যবহার করা হয় –
জিপসাম
হেমাটাই
বক্সাইট
গিবসাইট
চুনাপাথরের মধ্যে জিপসাম উপস্থিত থাকে।
22 কোনটি মিশ্র ধাতু?
পিতল
কাসা
ব্রোঞ্জ
সবকটি
23 কি কি মিশিয়ে পিতল তৈরি করা হয়?
তামা ও টিন
দস্তা ও টিন
তামা ও দস্তা
তামা ও লোহা
24 কি কি মিশিয়ে ব্রোঞ্জ তৈরি করা হয়?
লোহা ও নিকেল
লোহা ও কার্বন
তামা ও দস্তা
তামা ও টিন
25 লোহার সঙ্গে কি মিশিয়ে ইস্পাত তৈরি করা হয়?
দস্তা
অ্যালুমিনিয়াম
টিন
কার্বন
26 স্টেইনলেস স্টিল কি কি দিয়ে তৈরি?
লোহা ও কার্বন
তামা ও টিন
লোহা ও অ্যালুমিনিয়াম
লোহা ও ক্রোমিয়াম
27 নিচের কোন ধাতুটি সরাসরি মৌল হিসেবে পাওয়া যায়?
লোহা
তামা
অ্যালুমিনিয়াম
সোনা
28 বক্সাইট কোন ধাতুর প্রধান আকরিক?
অ্যালুমিনিয়াম
লোহা
তামা
নিকেল
29 গয়না তৈরীর সোনার সঙ্গে কি কি মিশিয়ে তৈরি করা হয়?
রুপো
তামা
দস্তা বা জিংক
সবকটি
30 ফিউজ তার কি কি দিয়ে তৈরি?
সিসা ও টিন
তামা ও সীসা
টিন ও লোহা
তামা ও টিন

আরও পড় : ক্লাস সিক্স পরিবেশ চ্যাপ্টার ১ মক টেস্ট

Post a Comment

Please Comment , Your Comment is Very Important to Us.