অষ্টম শ্রেণির স্বাস্থ্য ও শারীর শিক্ষা প্রথম অধ্যায় শারীর শিক্ষার মৌলিক ধারণা অনুশীলনীর প্রশ্ন উত্তর

অষ্টম শ্রেণির স্বাস্থ্য ও শারীর শিক্ষা প্রথম অধ্যায় শারীর শিক্ষার মৌলিক ধারণা অনুশীলনীর প্রশ্ন উত্তর । শারীরশিক্ষার লক্ষ্য। শারীরিক সক্ষমতার উপাদান

তুমি কি অষ্টম শ্রেনিতে পড় ? তুমি কি স্বাস্থ্য ও শারীরশিক্ষা বই- এর প্রথম অধ্যায় ( শারিশিক্ষার মৌলিক ধারণা ) এর অনুশীলনীর উত্তর খুজছ ? তাহলে এই লেখনি তোমার জন্য ।

অষ্টম শ্রেণির স্বাস্থ্য ও শারীর শিক্ষা প্রথম অধ্যায় অনুশীলনীর প্রশ্ন উত্তর

অষ্টম শ্রেণির স্বাস্থ্য ও শারীর শিক্ষা প্রথম অধ্যায় অনুশীলনীর প্রশ্ন উত্তর


১। সঠিক উত্তরটি নির্বাচন করো:

(a) দক্ষতাসম্পর্কিত উপাদান- (পেশিশক্তি/নমনীয়তা/গতি/দেহ উপাদান)।
উত্তর: গতি।
(b) স্বাস্থ্যসম্পর্কিত উপাদান- (গতি/ভারসাম্য/পেশি সহনশীলতা/ক্ষমতা)।
উত্তর: পেশি সহনশীলতা।
(c) ১৯০৭ সাল থেকে পরপর তিন বার ট্রেডস কাপ জেতে– (ডালহৌসি/মোহনবাগান/ কুমারটুলি) ক্লাব।
উত্তর: মোহনবাগান।

২। বাঁদিকের সঙ্গে ডানদিকের অংশ মেলাওঃ
বাঁদিক ডানদিক
(ক) গতি  (i) অস্থি সন্ধি র সঞ্চালন ক্ষমতা
(খ) প্রতিক্রিয়া সময় (ii) শাটল রান
(গ) নমনীয়তা (iii) নূন্যতম সময়ে অতিক্রান্ত দূরত্ব
(ঘ) ক্ষিপ্রতা (iv) নির্দেশ ও কাজ শুরুর মধ্যবতী সময়

উত্তর:  (ক) গতি → নূন্যতম সময়ে অতিক্রান্ত দূরত্ব।
(খ) প্রতিক্রিয়া সময় → নির্দেশ ও কাজ শুরুর মধ্যবতী সময়
(গ) নমনীয়তা → অস্থি সন্ধি র সঞ্চালন ক্ষমতা
(ঘ) ক্ষিপ্রতা → শাটল রান

৩। রচনাধর্মী প্রশ্ন :

(a) শারীরশিক্ষার লক্ষ্যগুলি বর্ণনা করো।
শারীরশিক্ষার লক্ষ্য হলো ব্যক্তিসত্তার পূর্ণবিকাশ। অর্থাৎ শারীরশিক্ষার বিভিন্ন কর্মসূচিতে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণের মাধ্যমে শারীরিক, মানসিক, প্রাক্ষোভিক, সামাজিক, বৌদ্ধিক ও নান্দনিক গুণাবলির বিকাশ ঘটানো, যা তাকে সমাজে সুস্থ ও সবলভাবে বাঁচতে ও সুনাগরিকরূপে পরিচিতি লাভে সহায়তা করে।

(b) আধুনিক জীবনে শারীরশিক্ষার প্রয়োজনীয়তা ব্যক্ত করো। 

শারীরশিক্ষার প্রয়োজনীয়তা :
  • শারীরশিক্ষার এর প্রয়োজনীয়তা নিম্নরূপ:
    •  শিশুর সর্বাঙ্গীণ বিকাশ ।
    •  শারীরিক বৃদ্ধি ও উন্নতি।
    •   বৌদ্ধিক বিকাশ।
    •   প্রাক্ষোভিক গুণাবলির বিকাশ ও তার নিয়ন্ত্রণ ।
    •  সামাজিক সমন্বয়সাধন 
    • শারীরিক সক্ষমতা বৃদ্ধি।
    • স্নায়ু ও পেশির সমন্বয়সাধন।
  • শারীরশিক্ষার জৈবিক প্রয়োজনীয়তা:
    • সুষম শারীরিক বৃদ্ধি ও বিকাশ
    • সুঠাম দৈহিক গঠন
    • স্নায়ুপেশির সমন্বয়
  • শারীরশিক্ষার মানসিক প্রয়োজনীয়তা:
    • সুষম মানসিক বিকাশ
    • আবেগ নিয়ন্ত্রণ ও দ্রুত সিদ্ধান্ত গ্রহণ ক্ষমতা 
    • নান্দনিক ও সৃজনশীলতার বিক
    • আত্মবিশ্বাস ও আত্ম উপলব্ধির বিকাশ
  • শারীরশিক্ষার সামাজিক প্রয়োজনীয়তাঃ
    • স্বাস্থ্যকর অভ্যাস গঠন 
    • জাতীয়তাবোধের বিকাশ 
    • দেহ সুসম্পর্ক গঠন 
    • শৃঙ্খলা ও নিয়মানুবর্তিত বিকাশ 
    • অপরাধপ্রবণতা হ্রাস করা।
    • শারীরশিক্ষার সুস্বাস্থ্যের প্রয়োজনীয়তা ও স্বাস্থ্যকর অভ্যাস গঠন। 
    • দূষণ ও সংক্রামক ব্যাধি নিয়ন্ত্রণ এবং প্রতিকার।

(c) শারীরিক সক্ষমতার উপাদান কাকে বলে? উপাদানগুলির নাম লেখো।
উত্তর:  শারীরিক সক্ষমতা যাদের উপর নির্ভরশীল তাদের শারীরিক সক্ষমতার উপাদান বলে।
শারীরিক সক্ষমতার উপাদান গুলি হল: 
  • স্বাস্থ্য সম্পর্কিত উপাদান: পেশিশক্তি নমনীয়তা দেহ উপাদান হৃদ শোষণ তান্ত্রিক সহনশীলতা।
  • দক্ষতা সম্পর্কিত উপাদান গতি ক্ষিপ্রতা ক্ষমতা সমন্বয় সাধন প্রতিক্রিয়ার সময়, ভারসাম্য ইত্যাদি।


(d) শারীরিক সক্ষমতার দক্ষতাসম্পর্কিত উপাদানগুলির নাম লেখো ।
উত্তর: শারীরিক দক্ষতা সম্পর্কিত উপাদান গুলি হল : গতি, ক্ষিপ্রতা, সমন্বয় সাধন, প্রতিক্রিয়ার সময়, ভারসাম্য ক্ষমতা।

(e) স্বাস্থ্য সম্পর্কিত শারীরিক সক্ষমতার উপাদানগুলি কী কী?
স্বাস্থ্য সম্পর্কিত শারীরিক সক্ষমতার উপাদান গুলি হল : পেশিশক্তি, নমনীয়তা, পেশী সহনশীলতা, দেহ উপাদান, হৃদ-শ্বসনতান্ত্রিক সহনশীলতা।

(f) শারীরিক সক্ষমতার উপযোগিতা ব্যক্ত করো।
উত্তর: শারীরিক সক্ষমতা প্রত্যেক মানুষের জীবনে একটি মূল্যবান সম্পদ। শারীরিক সক্ষমতার মূল উৎস হলো ব্যায়াম। সঠিক পদ্ধতিতে শরীর চর্চা ও বিজ্ঞানসম্মত অনুশীলনে নিম্নলিখিত ফলগুলি লাভ করা যেতে পারে -
  • শরীরের আভ্যন্তরীণ যন্ত্র ও তন্ত্রের উন্নতি সাধন।
  • পেশীর শক্তি ও সহনশীলতা বৃদ্ধি।
  • রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ।
  • সঠিক ওজন নিয়ন্ত্রণ।
  • সৌন্দর্যমন্ডিত দেহ ভঙ্গি ও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা লাভ।
  • সহযোগিতা ও বন্ধুত্বপূর্ণ মনোভাবের উন্নতি।
  • সুষম মানসিক বিকাশ ও দ্রুত সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতা বৃদ্ধি।

(g) ১৯১১ সালের আই. এফ. এ. শিল্ডের ফাইনাল খেলা সম্বন্ধে তুমি যা জানো লেখো।
উত্তর: ১৯১১ সালের আই এফ এ শিল্ড এর ফাইনাল খেলায় অংশগ্রহণ করেছিল ইস্ট ইউরক ও মোহনবাগান। খেলার প্রথমার্ধে ইস্ট ইউরক এর খেলোয়াড় জ্যাকসন একটি গোল করতে সক্ষম হয়। সাহেব দর্শকরা হাতে কাগজের শিল্ড নিয়ে নাচতে শুরু করল। 

১৯১১ সালের আই. এফ. এ. শিল্ডের ফাইনাল জয়ি মোহনবাগান


      হাফ টাইমের পরেই শুরু হল মোহনবাগানের মুহুর্মুহু আক্রমণ। মোহনবাগানের শিবদাস ভাদুড়ি বিপক্ষ দলের গোলের সামনে একটা বল পেয়ে শেষ পর্যন্ত একটি গোল করতে সক্ষম হন। এমত অবস্থায় দুই দলের গোল একই সমান। খেলা শেষের মাত্র কয়েক মিনিট আগেই মোহনবাগানের খেলোয়াড় অভিলাষ ঘোষ আরো একটি গোল করলেন এবং শুরু হলো মোহনবাগানের জয়ধ্বনি। মোহনবাগান এর শিল্ড জয় এর বিজয় উৎসব এ সারা বাংলা তখন মুখরিত হলো। চারিদিকে শুধু হিপ হিপ হুররে আর মোহনবাগানের জয়ধ্বনি।

(h) ১৯১১ সালের ঐতিহাসিক আই. এফ. এ. শিল্ড জয়ী মোহনবাগান খেলোয়াড়দের নাম লেখো।
উত্তর: ১৯১১ সালের ঐতিহাসিক আই. এফ. এ. শিল্ড জয়ী মোহনবাগান খেলোয়াড়দের  অনস্থান ও নাম :
  • গোলে: হীরালাল মুখার্জী। 
  • ব্যাক: এস. সুকুল ও সুধীর চ্যাটার্জী
  • হাফ ব্যাক : মনমোহন মুখার্জী, রাজেন সেনগুপ্ত ও নীলমাধব ভট্টাচার্য 
  • ফরোয়ার্ডে : যতীন রায়, হাবুল সরকার, অভিলাষ ঘোষ, বিজয়দাস ভাদুড়ী ও শিবদাস ভাদুড়ী

৪। শূন্যস্থান পূরণ করো :

(a) শারীরশিক্ষার লক্ষ্য ব্যক্তিসত্তার _____।
উত্তর: পূর্ণবিকাশ।
(b) শারীরিক সক্ষমতা যাদের উপর নির্ভরশীল তাদের শারীরিক সক্ষমতার _____ বলে।
উত্তর: উপাদান।
(c) দ্রুততার সঙ্গে দিক পরিবর্তনের ক্ষমতা নির্ভর করে _____ উপর।
উত্তর: 
(d) 50 মিটার দৌড় ____ নির্দেশ করে।
উত্তর: ব্যক্তিগত ক্রীড়া।
(e) সুষম খাদ্য ব্যক্তির অভ্যন্তরীণ যন্ত্র ও ____ সুস্থ রাখে।
উত্তর:  তন্ত্রগুলি।
(f) প্রতিদিন শারীরিক ক্রিয়াকলাপে অংশগ্রহণ ____ বিভিন্ন যন্ত্র ও তন্ত্রগুলির উপর প্রভাববিস্তার করে।
উত্তর: শরীরের।
(i) অস্থিসন্ধির সর্বোচ্চ সঞ্চালনের ক্ষমতা নির্ভর করে _____ উপর।
উত্তর: নমনীয়তার।

৫। বাঁদিকের সাথে ডান দিকের সম্পর্ক নির্ণয় করো:

বাঁদিক ডানদিকে
(ক) ১৮৫৪ (i) হাওয়া ভরতি চামড়ার বলে কলকাতায় ফুটবল খেলা শুরু
(খ) নগেন্দ্র প্রসাদ  (ii) বয়েজ স্পোর্টিং ক্লাব
(গ) জিতেন্দ্রকৃষ্ণ দেব (iii) শোভাবাজার ফুটবল ক্লাব
(ঘ) মোহনবাগান স্পোর্টিং ক্লাব (iv) ভূপেন্দ্রনাথ বসু
(ঙ) ডালহৌসি ক্লাব (v) ১৯০৫ সালে আই. এফ. এ. শিল্ড জিতেছিল

উত্তরঃ 
(ক) ১৮৫৪ → (i) হাওয়া ভরতি চামড়ার বলে কলকাতায় ফুটবল খেলা শুরু
(খ) নগেন্দ্র প্রসাদ → (ii) বয়েজ স্পোর্টিং ক্লাব
(গ) জিতেন্দ্রকৃষ্ণ দেব → (iii) শোভাবাজার ফুটবল ক্লাব
(ঘ) মোহনবাগান স্পোর্টিং ক্লাব → (iv) ভূপেন্দ্রনাথ বসু 
(ঙ) ডালহৌসি ক্লাব → (v) ১৯০৫ সালে আই. এফ. এ. শিল্ড জিতেছিল।

[বিঃ দ্রঃ - প্রশ্ন ও উত্তর একই অর্থাৎ প্রশ্নেই উত্তর সাজান অবস্থায় ছিল]

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Please Comment , Your Comment is Very Important to Us.