কোনো অধ্যায়ের মকটেস্ট, প্রশ্ন-উত্তর কিংবা মতামত এর জন্য → Contact us !

নবম শ্রেণী ভৌত বিজ্ঞান চতুর্থ অধ্যায় পদার্থ পরমাণুর গঠন অনুশীলনীর প্রশ্ন উত্তর ছায়া প্রকাশনী | class 9 physical science chapter 4 atom Question answer

নবম শ্রেণী ভৌত বিজ্ঞান চতুর্থ অধ্যায় পদার্থ পরমাণুর গঠন অনুশীলনীর প্রশ্ন উত্তর ছায়া প্রকাশনী । class 9 physical science chapter 3 atom Question ans

নবম শ্রেণীর চতুর্থ অধ্যায় পরমাণুর গঠন সম্পর্কে আলোচনা রয়েছে। আজকে আমরা এই চতুর্থ অধ্যায়ের অনুশীলনির প্রশ্নগুলির উত্তর নিয়ে আলোচনা করব।

Class ix Physical science chapter 4 Atom Question answer

এই অধ্যায়ের মূল আলোচ্য বিষয় গুলির হলো - ইলেকট্রন আবিষ্কার, রাদারফোর্ডের আলফা কণা বিচ্ছুরণ পরীক্ষা, রাদারফোর্ডের পরমাণু মডেল, রাদারফোর্ডের পরমাণু মডেলের ত্রুটি, নিউট্রন আবিষ্কার, ইলেকট্রন প্রোটন ও নিউট্রন সম্পর্কে ধারণা, পরমাণুর গঠন সম্পর্কিত বোর-রাদারফোর্ড মডেল, আইসোটোপ, আইসোবার, আইসোটোন, নিউক্লিয় বল, ইলেকট্রন বিন্যাস ও কক্ষ থেকে কক্ষে ইলেকট্রনের গমনের ফলে শক্তির শোষণ ও বিকিরণ।নবম শ্রেণী ভৌত বিজ্ঞান চতুর্থ অধ্যায় অনুশীলনী


নবম শ্রেণী ভৌত বিজ্ঞান চতুর্থ অধ্যায় পদার্থ পরমাণুর গঠন অনুশীলনীর প্রশ্ন উত্তর ছায়া প্রকাশনী

বিভাগ ক - বহু বিকল্প ভিত্তিক প্রশ্ন (MCQ) - মান ১

1. 14C6 নিউক্লাইডটির নিউট্রন সংখ্যা কত?

(A) 6 (B) 14 (C) 8 (D) 12

উত্তর: (C) 8

2. Al সর্বশেষ ইলেকট্রন টি কোন কক্ষে প্রবেশ করে?

(A) K (B) L (C) M (D) N

উত্তর: (C) M

3. নিউট্রনের আধান এর প্রকৃতি কিরূপ?

(A) ধনাত্মক (B) ঋণাত্মক (C) নিস্তড়িত (D) কোনোটিই নয়

উত্তর: (C) নিস্তড়িত ।

4. আলফা কণা বিচ্ছুরণ পরীক্ষার সাহায্যে আবিষ্কৃত হয়-

(A) ইলেকট্রন (B) প্রোটন (C) নিউট্রন (D) নিউক্লিয়াস

উত্তর: (D) নিউক্লিয়াস ।

5. কে সর্বপ্রথম পারমাণবিক মডেলের প্রস্তাব করেন?

(A) রাদারফোর্ড (B) থমসন (C) বোর (D) বেকারেল

উত্তর: (B) থমসন।

বিভাগ খ - অতি সংক্ষিপ্ত উত্তর ভিত্তিক প্রশ্ন : মান ১

একটি শব্দ বা একটি বাক্যে উত্তর দাও।

1. আইসোটোপের জন্য কোন প্রাথমিক কণাটি দায়ী?

উত্তর: আইসোটোপের জন্য নিউট্রন কণা দায়ী।

2. আইসোটোপ গুলি শনাক্ত করো : 13C6 , 14C6, 17C7

উত্তর: আইসোটোপ গুলি হলো 13C6 , 14C6

3. কোন মৌলের পরমাণু ক্রমাঙ্ক ও ভরসংখ্যা কোন ক্ষেত্রে একই হতে পারে?

উত্তর: যখন কোন মৌলের পরমাণুতে নিউটন কণা অনুপস্থিত থাকে তখন ওই মৌলের পরমাণু ক্রমাঙ্ক ও ভর সংখ্যা একই হয়।

4. 3Li পরমাণুর বহিঃস্থ কক্ষের ইলেকট্রনটিকে তৃতীয় কক্ষে স্থানান্তরিত করলে শক্তির শোষণ না বর্জন ঘটবে?

উত্তর: শক্তির বর্জন ঘটবে।

স্তম্ভ মেলাও

বাম স্তম্ভডান স্তম্ভ
(1) 14C614N7(A) আইসোটোপ
(2) 12C613C6(B) আইসোবার
(3) 3H14He2(C) নিউক্লিয়ন
(4) p ও n(D) আইসোটোন

উত্তর:

বাম স্তম্ভডান স্তম্ভ
(1) 14C614N7(B) আইসোবার
(2) 12C613C6(A) আইসোটোপ
(3) 3H1 ও 4He2(D) আইসোটোন
(4) p ও n(C) নিউক্লিয়ন

শূন্যস্থান পূরণ কর

1. নিউট্রন বিহীন পরমাণু হলো ___ ।

উত্তর: প্রোটিয়াম।

2. সর্বোচ্চ ভর বিশিষ্ট প্রাথমিক কণা হল ___।

উত্তর: নিউট্রন।

3. ____ কনার আদান-প্রদানে নিউক্লিয় বল সৃষ্টি হয়।

উত্তর: মেসন

4. ____ ধাতু কে উত্তপ্ত করলে ইলেকট্রন নির্গত হয়।

উত্তর: টাংস্টেন।

5. ক্যাথোড রশ্মি হল ____ কণার স্রোত।

উত্তর: ইলেকট্রন।

6. পরমাণুর নিউক্লিয়াসে ____ থাকে না।

উত্তর: ইলেকট্রন ।


সত্য মিথ্যা নিরূপণ করো।

1. সকল পরমাণুর কেন্দ্রকে প্রোটন ও নিউট্রন থাকে।

উত্তর: সত্য।

2. পরমাণুর সমগ্র ধনাত্মক আধান কেন্দ্রকে পুঞ্জিভূত থাকে।

উত্তর: সত্য।

3. পরমাণুর সবচেয়ে বাইরের কক্ষে 8টির বেশি ইলেকট্রন থাকতে পারে।

উত্তর: সত্য।

4. H - পরমাণুর ভর অপেক্ষা প্রোটনের ভর সামান্য বেশি।

বিভাগ গ সংক্ষিপ্ত উত্তর ভিত্তিক প্রশ্ন মান 2

1. পরমাণু ক্রমাঙ্ক মৌলের মূল গত ধর্মের নির্ণায়ক কেন?

উত্তর: মৌলের নিউক্লিয়াসে উপস্থিত প্রোটন সংখ্যায় হলো তার পারমাণবিক সংখ্যা যা মৌলের প্রকৃতি নির্ধারণ করে। পারমাণবিক সংখ্যা পরিবর্তিত হলে মৌলের ভৌত ও রাসায়নিক ধর্ম পরিবর্তিত হয়। প্রত্যেক মৌলিক আলাদা আলাদা ভৌত ও রাসায়নিক ধর্ম আছে। আবার এক একটি মৌলের পারমাণবিক সংখ্যাও নির্দিষ্ট। দুটি ভিন্ন মৌলের পারমাণবিক সংখ্যা কখনো এক হতে পারেনা। তাই পারমানবিক সংখ্যা দিয়ে মৌলকে সনাক্ত করা হয়। এই কারণে পরমাণু ক্রমাঙ্ক মৌলের মূলগত বা স্বকীয় ধর্মের নির্ণায়ক।

2. সমস্থানিক গুলির রাসায়নিক ধর্ম অভিন্ন হয় কেন?

উত্তর: আইসোটোপ গুলির পারমানবিক সংখ্যা সমান হওয়ায় প্রোটন সংখ্যা অপরিবর্তিত থাকে কিন্তু নিউট্রন সংখ্যা ভিন্ন হয়। আমরা জানি কোন মৌলের পরমাণু ক্রমাঙ্ক অর্থাৎ প্রোটন সংখ্যার হলো ওই মৌলের মূলগত ধর্মের নিয়ন্ত্রক। তাই আইসোটোপ গুলির রাসায়নিক ধর্ম অভিন্ন হয়।

3. 31P15 তে নিউক্লিয়ন এর সংখ্যা লেখ।

উত্তর:  31P15 তে প্রোটন এর সংখ্যা 15 টি এবং নিউট্রন এর সংখ্যা (31 - 15) টি = 16 টি।

4. কোন মৌলের পরমাণু ক্রমাঙ্ক বলতে কী বোঝো?

উত্তর: কোন মৌলের পরমাণুর নিউক্লিয়াসে যতগুলি প্রোটন থাকে সেই সংখ্যাকে ওই মৌলের পারমাণবিক সংখ্যা বলে।

5. আইসোটোপ এর উদাহরণ সহ সংজ্ঞা দাও

উত্তর: কোন মৌলের বিভিন্ন পরমাণু যাদের পারমাণবিক সংখ্যা এক ওই কিন্তু নিউক্লিয়াসে ভিন্ন সংখ্যক নিউট্রন থাকার ফলে ভরসংখ্যা আলাদা তাদের ওই মৌলের আইসোটোপ বলে যেমন হাইড্রোজেনের তিনটি আইসোটোপ প্রোটিয়াম , ডয়টেরিয়াম ও ট্রিটিয়াম।

6. আইসোবার কাকে বলে উদাহরণ দাও।

উত্তর: ভিন্ন পারমাণবিক সংখ্যা কিন্তু একই ভর সংখ্যা বিশিষ্ট ভিন্ন ভিন্ন মৌলের পরমাণুগুলিকে আইসোবার বলে। যেমন 40Ar1840Ca20 পরস্পরের আইসোবার।

বিভাগ ঘ দীর্ঘ উত্তর ভিত্তিক প্রশ্ন মান 3

1. তিনটি পরমাণুর ভর সংখ্যা 31, 32 ও 34 । এদের পরমাণু ক্রমাঙ্ক যথাক্রমে 15, 16 ও 16 । এদের মধ্যে কোন দুটি আইসোটোপ ও কোন দুটি আইসোটোন?

উত্তর: যে দুটি মৌলের পরমাণু ক্রমাঙ্ক 16 অর্থাৎ সমান তারা পরস্পরের আইসোবার। 31 ও 32 ভরসংখ্যা বিশিষ্ট পরমানু দুটির নিউট্রন সংখ্যা (31-15) = 16 অর্থাৎ সমান তারা পরস্পরের আইসোটোন।

2. অ্যানোডরূপে ব্যবহৃত ধাতুর প্রকৃতির ওপর অ্যানোড রশ্মি কণার প্রকৃতি নির্ভর করে না -  ব্যাখ্যা করো

উত্তর: অ্যানোড রশ্মির প্রকৃতি অ্যানোড রূপে ব্যবহৃত ধাতুর প্রকৃতির উপর নির্ভর করে না। তড়িৎ এর সংযোগ উল্টিয়ে দিলেই অ্যানোড ক্যাথোড ও ক্যাথোড অ্যানোড এ পরিণত করা যেতে পারে। বরং অ্যানোড রশ্মি নির্ভর করে টিউবে নেওয়া গ্যাসের উপর কারণ এই গ্যাস থেকেই রশ্মি উৎপন্ন হয়। 

3. একটি পরমাণুর M কক্ষে তিনটি ইলেকট্রন আছে। ওর ভর সংখ্যা 27 হলে পরমাণু তে উপস্থিত ইলেকট্রন প্রোটন ও নিউট্রনের সংখ্যা গণনা করো।

উত্তর: যেহেতু M কক্ষে তিনটি ইলেকট্রন আছে তাই সর্বশেষ কক্ষ হলো M। 

অর্থাৎ পরমাণুতে উপস্থিত মোট ইলেকট্রন = 2+8+3 = 13 টি ।

অর্থাৎ পরমাণুতে উপস্থিত প্রোটন সংখ্যা 13 টি।

পরমাণুতে উপস্থিত নিউট্রন সংখ্যা = (27-13) টি 14 টি।

4. M কক্ষের সর্বোচ্চ ইলেকট্রন ধারণ ক্ষমতা কত? 20Ca পরমাণুর বিভিন্ন কক্ষে ইলেকট্রন বিন্যাস উল্লেখ করো।

উত্তর: M কক্ষের সর্বোচ্চ ইলেকট্রন ধারণ ক্ষমতা = 2×3×3 = 18 টি।

▣ K কক্ষে ইলেকট্রন 2 টি

L কক্ষে ইলেকট্রন 8 টি

M কক্ষে ইলেকট্রন 8 টি

N কক্ষে ইলেকট্রন 2 টি


5. বোর রাদারফোর্ড পরমাণু মডেলের স্বীকার্য গুলি লেখ।
উত্তর: বোর রাদারফোর্ড পরমাণু মডেল মূলত ইলেকট্রনের গতি সংক্রান্ত তিনটি স্বীকার্যের ওপর প্রতিষ্ঠিত।
বোর রাদারফোর্ড পরমাণু মডেল


(i) ইলেকট্রন গুলি নিউক্লিয়াস কে কেন্দ্র করে ইচ্ছামত যেকোনো বৃত্তাকার কক্ষপথে আবর্তন করে না, কেবলমাত্র কতগুলি নির্দিষ্ট ব্যাসার্ধের বৃত্তাকার কক্ষপথে আবর্তন করে। এগুলোই হল ইলেকট্রনের আবর্তন এর জন্য নির্দিষ্ট কক্ষপথ।
(ii) এইসব নির্দিষ্ট বৃত্তাকার কক্ষপথগুলির যেকোনো টিতে আবর্তন করার সময় ইলেকট্রন কোন শক্তি বর্জনও করে না শোষণও করে না। তাই এইগুলিকে স্থায়ী বা সুস্থির কক্ষপথ বলা হয়। নিউক্লিয়াস থেকে ক্রমবর্ধমান দূরত্ব অনুযায়ী সুস্থির কক্ষপথগুলি কে K, L, M, N, O, P, Q অক্ষরের সাহায্যে প্রকাশ করা হয়। কোন একটি মুখ্য শক্তি স্তর এর সর্বাধিক 2n2 সংখক ইলেকট্রন থাকতে পারে। এখানে n হলো কক্ষপথের ক্রমিক নম্বর।
(iii) নির্দিষ্ট কক্ষপথে আবর্তন শীল ইলেকট্রনের শক্তিকেই ওই কক্ষপথের শক্তি হিসাবে মনে করা হয় যদিও কক্ষপথগুলি নিজস্ব কোন শক্তি নেই নিউক্লিয়াস থেকে যত দূরে যাওয়া যায় কক্ষপথের শক্তি বাড়ে । ইলেকট্রনগুলি নিউক্লিয়াসের যত কাছের কক্ষপথে থাকে ততোদিন হবে তারা পরমাণুর মধ্যে আবদ্ধ থাকে।
(iv) দূরবর্তী কক্ষপথের ইলেকট্রন গুলি আলগাভাবে আবদ্ধ থাকে। কোন ইলেকট্রন উচ্চশক্তির পক্ষ থেকে নিম্নশক্তির কক্ষে ঝাঁপ দিলে ইলেকট্রনটি নির্দিষ্ট পরিমাণ শক্তি বিকিরণ করে অন্যদিকে কোন ইলেকট্রন নির্দিষ্ট পরিমাণ শক্তি শোষণ করে নিম্ন কক্ষ থেকে উচ্চতর কক্ষে উন্নীত হয়।
Web & App Developer, Blogger , Youtuber , VRP @Social Audit Unit-WB Govt

১টি মন্তব্য

  1. For any help or suggestion please comment
Please Comment , Your Comment is Very Important to Us.