Header Ads Widget

ক্লাস সিক্স ভূগোল প্রশ্ন উত্তর | অধ্যায়- শিলা ও খনিজ পদার্থ |খনিজ পদার্থ ও আকরিক | সংকর ধাতু | জীবাশ্ম বা ফসিল | জীবাশ্ম জ্বালানি বা ফসিল ফুয়েল | Class 6 Geography chapter rock | minerals | fossil and fossil fuel

ষষ্ঠ শ্রেণির ভূগোলের শিলা ও খনিজ পদার্থ অধ্যায় থেকে আজকে সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নোত্তর নিয়ে আলোচনা করব। আজকের এই আলোচনা পর্বে ছোট ও বড় সব রকম প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করব। আজকের এই মডেল এক্টিভিটি এর আলোচ্য বিষয় হল নানান ধরনের শিলা (আগ্নেয় শিলা, পাললিক শিলা ও রূপান্তরিত শিলা), খনিজ পদার্থ ও আকরিক ও জীবাশ্ম বা ফসিল এর ধারণা, জীবাশ্ম জ্বালানি ও তার ব্যবহার। আশা করি তোমাদের এই পোস্ট টি পড়ে ভাল লাগবে।

বি: দ্র:- এই পোস্টে ষষ্ঠ শ্রেণীর বাইরেও শিলা ও খনিজ অধ্যায় এর অনেক ছোট ও সংক্ষিপ্ত গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন উত্তর আছে ।




নানান ধরনের শিলা

প্রশ্নঃ- শিলার শ্রেনিবিভাগ ছকের মাধ্যমে দেখাও।

উত্তরঃ - শিলার শ্রেণীবিভাগ - 

1. আগ্নেয় শিলা

  • নিঃসারি শিলা →ব্যাসল্ট, পিউমিস
    • বিস্ফোরক প্রকৃতির → ব্যাসল্ট
    • শান্ত আগ্নেয় শিলা → পিউমিস
  • উদবেধি শিলা →
    • পাতালিক শিলা → গ্যাব্রো
    • উপপাতালিক শিলা → ডলোরাইট

2. পাললিক শিলা

  • যান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় গঠিত → বেলে পাথর
  • জৈব উপায়ে গঠিত → কয়লা
  • রাসায়নিক উপায়ে গঠিত → চুনাপাথর

3. রূপান্তরিত শিলা

  • পত্রায়িত শিলা → শিষ্ট ও স্লেট
  • অপত্রায়িত শিলা → মার্বেল ও কোয়ার্টজাইট
শিলার শ্রেণীবিভাগ

আগ্নেয় শিলা

প্রশ্ন:- ম্যাগমা কাকে বলে?

উত্তর:- মাটির যত গভীরে যাওয়া যায়, চাপ এবং উষ্ণতা তত বাড়ে। পৃথিবীর গভীরে চাপ ও উষ্ণতা এতই বেশি যে সেখানে পাথর থাকে তরল অবস্থায়। একে ম্যাগমা বলে।

প্রশ্ন:- লাভা কাকে বলে?

উত্তর:- ম্যাগমা যখন কোন পাথরের ফাটল বা পাহাড়ের মুখ দিয়ে বেরিয়ে আসে তখন তাকে লাভা বলে।

প্রশ্ন:- আগ্নেয় শিলা কাকে বলে?

উত্তর:- জমাটবাঁধা লাভা কেই আগ্নেয় শিলা বলে।

প্রশ্ন:- আগ্নেয় শিলার বৈশিষ্ট্য লেখ।

উত্তর:- আগ্নেয় শিলার বৈশিষ্ট্য:-

  1. আগ্নেয় শিলা স্তর থাকে না।
  2. আগ্নেয় শিলা জীবাশ্ম পাওয়া যায় না।
  3. আগ্নেয় শিলার দানা গুলির মধ্যে ছিদ্র থাকে ।
  4. আগ্নেয়শিলা উত্তপ্ত গণিত অবস্থা থেকে তাপ বিকিরণ করে সৃষ্টি হয় বলে ক্ষেত্রবিশেষে কেলাসিত হয়।
  5. আগ্নেয় শিলা সুদৃঢ় ও সুসংহত হয়।
  6. আগ্নেয় শিলার অন্যতম বৈশিষ্ট্য হচ্ছে এটি পৃথিবীর প্রাচীনতম শিলা।
  7. আগ্নেয় শিলা অন্যান্য শিলার তুলনায় ভারী

প্রশ্ন:- আগ্নেয় শিলা কয় প্রকার ও কি কি?

উত্তর:- উৎপত্তি ও গঠন অনুসারে আগ্নেয় শিলা দুই প্রকার। যথা:

  1.  নিঃসারী আগ্নেয় শিলা
  2.  উদবেধী আগ্নেয় শিলা।

গঠনকারী খনিজ উপাদান অনুসারে আগ্নেয় শিলাকে চার ভাগে ভাগ করা হয়। যথা:

  1. ফেলাপসিক।
  2. মেফিক।
  3. উচ্চমাত্রার মেফিক ।
  4. ফেলপসিপ ও মেফিক এর মাঝামাঝি।

প্রশ্ন:- আগ্নেয় শিলা কয় প্রকার ও কি কি? ( ষষ্ঠ শ্রেণীর পাঠ্য বই অনুযায়ী - সাধারণত)

উত্তর:- আগ্নেয় শিলা তিন রকমের হয়। যথা:

  • ব্যাসল্ট
  • গ্রানাইট
  • পিউমিস।

প্রশ্ন:- পিউমিস পাথরে ছিদ্র থাকে কেন?

উত্তর:- উত্তপ্ত ম্যাগমার উপরে ফেনার মত অংশ তাড়াতাড়ি জমে গিয়ে পিউমিস পাথর তৈরি হয়। তরল ম্যাগমায় দ্রবীভূত গ্যাস ম্যাগমার মধ্যে দিয়ে বেরোনোর সময় পিউমিস পাথরে ছিদ্র সৃষ্টি হয়।


প্রশ্ন:- রেললাইনে কোন পাথর ব্যবহার করা হয়?

উত্তর:- রেললাইনে কালো ব্যাসল্ট পাথর ব্যবহার করা হয়।

প্রশ্ন:- ______ থেকে পাললিক শিলা তৈরি হয়।

উত্তর:- পলি।

প্রশ্ন:- পাললিক শিলা কয় প্রকার ও কি কি?

উত্তর:- পাললিক শিলা তিনপ্রকার যথা- বেলেপাথর, শেল ও চুনাপাথর।

প্রশ্ন:- কোন শিলা অতীতের প্লেট সঞ্চারণ এর স্বাক্ষর বহন করে?

উত্তর:- পাললিক শিলা।

প্রশ্ন:- পাললিক শিলার বৈশিষ্ট্য লেখ।

উত্তর:- পাললিক শিলার বৈশিষ্ট্য:

  1. পাললিক শিলা স্তর দেখা যায় এই শিলায় জীবাশ্ম পাওয়া যায়
  2. এই শিলা কখনো উত্তপ্ত অবস্থা থেকে শীতল হয়ে সৃষ্টি হয় না তাই অক কেলাসিত
  3. আগ্নেয় শিলার ভগ্নাংশ সঞ্চিত হয়ে পাললিক শিলা তৈরি হয় বলে এই শিলা অপেক্ষাকৃত কোমল হয়

প্রশ্ন:- আগ্নেয় শিলা পাললিক শিলার পার্থক্য লেখ।

আগ্নেয় শিলাপাললিক শিলা
1. আগ্নেয় শিলা কঠিন প্রকৃতির1. পাললিক শিলা কোমল প্রকৃতির
2. আগ্নেয় শিলায় স্তর থাকে2 . পাললিক শিলায় কোন স্তর থাকে না
3. আগ্নেয় শিলায় জীবাশ্ম দেখা যায় না3. পাললিক শিলায় জীবাশ্ম দেখা যায়
4. আগ্নেয় শিলায় জীবাশ্ম জ্বালানি পাওয়া যায় না4. পাললিক শিলায় জীবাশ্ম জ্বালানি পাওয়া যায়
5. আগ্নেয় শিলা স্ফটিকাকার হয়5. পাললিক শিলা স্ফটিকাকার হয় না
6. আগ্নেয়শিলা কম ক্ষয়প্রাপ্ত হয়6. পাললিক শিলা তুলনামূলক বেশি ক্ষয়প্রাপ্ত হয়
7. আগ্নেয়শিলা হল আদি শিলা অর্থাৎ সর্বপ্রথম এই শিলা সৃষ্টি হয়েছিল7. পাললিক শিলা অন্যান্য শিলা বিচুর্ণ থেকে সৃষ্টি হয়।

প্রশ্ন:- পরিবর্তিত শিলা বা রুপান্তরিতশিলা কাকে বলে?

উত্তর:- আগ্নেয় শিলা এবং পাললিক শিলা মাটির গভীরে গরমে আর চাপে বদলে গিয়ে যে শিলা তৈরি হয় তাকে পরিবর্তিত শিলা বা রূপান্তরিত শিলা বলে।

প্রশ্ন:- চুনাপাথর পরিবর্তিত হয় কোন শিলা তৈরি হয়?

উত্তর:- মার্বেল পাথর।

প্রশ্ন:-গ্রানাইট শিলা পরিবর্তিত হয়ে কোন শিলা তৈরি হয়?
অথবা, গ্রানাইট শিলার পরিবর্তিত রূপ কি?

উত্তর:- নিস পাথর।

প্রশ্ন:- আগ্নেয় শিলার ব্যবহার লেখ।

উত্তর:- আগ্নেয় শিলা বিভিন্ন ব্যবহার করে। একটি গুরুত্বপূর্ণ ব্যবহার হল বিল্ডিং এবং মূর্তিগুলির জন্য পাথর। ডলোরাইট প্রাচীন সভ্যতা দ্বারা ফুলদানি এবং অন্যান্য আলংকারিক শিল্পকর্মের জন্য ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়েছিল এবং আজও শিল্পের জন্য ব্যবহৃত হয় । গ্রানাইট বিল্ডিং নির্মাণ এবং মূর্তিগুলির জন্য উভয়ই ব্যবহৃত হয়।

প্রশ্ন:- নিঃসারী আগ্নেয় শিলার উদাহরণ।

উত্তর:- ব্যাসল্ট।

প্রশ্ন:- উদ্‌বেদী শিলার একটি উদাহরণ দাও। 

উত্তর:- গ্রানাইট

প্রশ্ন:- গ্রানাইট কোন ধরনের শিলা?
উত্তর:- গ্রানাইট হলো এক প্রকারের আগ্নেয় শিলা।

প্রশ্ন:- আগ্নেয় শিলা কে প্রাথমিক শিলা বলা হয় কেন?

উত্তর:-  পৃথিবীতে সর্বপ্রথম সৃষ্টি হয়েছিল আগ্নেয় শিলা। উত্তপ্ত গলিত ম্যাগমা ধীরে ধীরে তাপ বিকিরণ করে সৃষ্টি হয়েছিল আগ্নেয় শিলা। আগ্নেয় শিলা চূর্ণ-বিচূর্ণ থেকে পাললিক ও উচ্চচাপ তাপে পরিবর্তিত হয়ে রূপান্তরিত শিলা সৃষ্টি হয়। যেহেতু আগ্নেয়শিলা সর্বপ্রথম সৃষ্টি হয়েছিল তাই আগ্নেয় শিলাকে আদি শিলা বা প্রাথমিক শিলা বলা হয়।

প্রশ্ন:- যেকোনো পাঁচটি ক্ষেত্রে শিলার ব্যবহার লেখ।

উত্তর:- বর্তমানে শিলার বিভিন্ন ব্যবহার প্রচলিত। নির্মাণ কাজে শিলার একাধিক ব্যবহারের মধ্যে পাঁচটি গুরুত্বপূর্ণ ব্যবহার হলো.... Read More

প্রশ্ন:- বেলে পাথর কোন ধরনের শিলা?

উত্তর:- পাললিক শিলা।

প্রশ্ন:- নিস কোন ধরনের শিলা?

উত্তর:- নিস এক প্রকারের রূপান্তরিত শিলা।

প্রশ্ন:- আগ্নেয় শিলায় জীবাশ্ম দেখা যায় না কেন?

উত্তর:- আগ্নেয় শিলা উত্তপ্ত গলিত পদার্থ থেকে তাপ বিকিরণের মাধ্যমে সৃষ্টি হয় বলে কোন প্রাণী বা উদ্ভিদের অস্থিত্ব আশা করা যায় না এই কারণে জাতীয় শিলা কোন জীবাশ্ম পাওয়া যায় না।

প্রশ্ন:- অ্যালুমিনিয়ামের আকরিক এর নাম কি?
উত্তর:- বক্সাইট।

উত্তর:- কপারের আকরিক এর নাম কি?
উত্তর:- কপার গ্লানস।

প্রশ্ন:- লোহার প্রধান আকরিক কি?
উত্তর:- রেড হেমাটাইট।

প্রশ্ন:- বিভিন্ন ধাতু ও তাদের আকরিক এর তালিকা
উত্তর: 
ধাতুআকরিকসঙ্কেত
লোহারেড হেমাটাইটFe3O4
তামাকপার গ্ল্যানসCu2S
জিংকজিংক ব্লেন্ডZns
অ্যালুমিনিয়ামবক্সাইটAl2O3.2H2O
ম্যাগনেসিয়ামম্যাগনেসাইটMgCO3
ক্যালসিয়ামডোলোমাইটMgCO3.CaCO3
পটাশিয়ামসল্ট পিটারKNO3
সিলভাররুবি সিলভার3Ag2S.Sb2S3
সোনা বা গোল্ডক্যালভেরাইটAuTe2
ম্যাঙ্গানিজপাইরোলুসাইটMNO2

প্রশ্ন:- জীবাশ্ম জ্বালানি সংরক্ষণের প্রয়োজনীয়তা কি?
উত্তর:- জীবাশ্ম জ্বালানী সংরক্ষণের গুরুত্বপূর্ণ কারণ রয়েছে । এটি পরিবেশ নিরাময়ে বা দূষিত কম হতে সহায়তা করতে পারে।  পেট্রোলিয়াম, কয়লা এবং প্রাকৃতিক গ্যাস পোড়ানোর ফলে নাইট্রোজেন অক্সাইড, সালফার ডাই অক্সাইড, কার্বন ডাই অক্সাইড, ওজোন এবং একাধিক হাইড্রোকার্বন সহ ক্ষতিকারক দূষকগুলি বায়ুতে মেশে।

প্রশ্ন:- জীবাশ্ম জ্বালানি সংরক্ষণের উপায় লেখ।
উত্তর:- 
  • (i) CNG এর মতো কার্যকর রূপে রূপান্তর। 
  • (ii) অগ্নিকাণ্ড থেকে সম্পদ সংরক্ষণ করা।
  • (iii) তেলের অপচয় থেকে বিরত থাকা। 
  • (iv) বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য সৌর শক্তি, বায়ু কলগুলি ব্যবহার করে যেমন : নবিকরণযোগ্য শক্তির আরও বেশি ব্যবহার করুন ।

প্রশ্ন:- প্রাথমিক শিলার অপর নাম কী?
উত্তর:- আগ্নেয় শিলা।

প্রশ্ন:- একটি ক্ষারকীয় আগ্নেয় শিলার নাম লেখ।
উত্তর:- ব্যাসল্ট।

প্রশ্ন:- গ্রানাইট কী ধরনের শিলা?
উত্তর:- গ্রানাইট আগ্নেয় শিলা।

প্রশ্ন:- কোন শিলায় বেশি খনিজ তেল ও প্রাকৃতিক গ্যাস পাওয়া যায়?
উত্তর:-:পাললিক শিলায়।

প্রশ্ন:- চুনাপাথর কোন শ্রেণির শিলা?
উত্তর:- পাললিক শিলা।

প্রশ্ন:- শ্বেত পাথর কোন শ্রেণির শিলা?
উত্তর:- রূপান্তরিত শিলা।

প্রশ্ন:- সর্বপ্রথম কোন শিলা সৃষ্টি হয়?
উত্তর:- আগ্নেয় শিলা।

প্রশ্ন:- আগ্নেয়শিলাকে কয়ভাগে ভাগ করা যায় ও কী কী?
উত্তর:- দুই ভাগে : নিঃসারী ও উদবেদী

প্রশ্ন:- কোন শিলায় স্তর ও জীবাশ্ম পাওয়া যায় না?
উত্তর:- আগ্নেয় শিলায়।

প্রশ্ন:- ব্যাসল্ট কোন জাতীয় শিলা?
উত্তর:- আগ্নেয় শিলা।

খনিজ পদার্থ ও আকরিক

প্রশ্ন:- খনিজ পদার্থ কাকে বলে?
উত্তর:- প্রকৃতিতে বিভিন্ন ধাতুর যৌগ বালি , মাটি ইত্যাদির সঙ্গে মিশে থাকা অবস্থায় পাওয়া যায়। এদের ধাতুর খনিজ বা মিনারেল বলে।

প্রশ্ন:- খনিজ থেকে ধাতুকে আলাদা করার পদ্ধতিকে কি বলা হয়?
উত্তর:- ধাতু নিষ্কাশন।

প্রশ্ন:- শিলা ও খনিজের পার্থক্য লেখ।

খনিজশিলা
1. খনিজ বিভিন্ন রাসায়নিক উপাদান নিয়ে গঠিত1. বিভিন্ন খনিজের সমন্বয়ে শিলা গঠিত
2. বেশিরভাগ খনিজ স্ফটিকাকার হয়2. শিলার নির্দিষ্ট কোন আকার নেই
3. খনিজের রাসায়নিক সংকেত ও সংস্থিতি আছে3. শিলার রাসায়নিক সংকেত ও সংস্থিতি নেই
4. খনিজ ক্ষয়প্রাপ্ত হয় না4. শিলা ক্ষয়প্রাপ্ত হয়
5. খনিজের সুনির্দিষ্ট ভৌত গুণাবলী আছে5. শিলার গুণাবলীর মধ্যে সুনির্দিষ্টতা নেই
6. খনিজের অর্থনৈতিক গুরুত্ব অনেক6. শিলার অর্থনৈতিক গুরুত্ব তুলনামূলক কম

প্রশ্ন:- সবচেয়ে কঠিন খনিজ কোনটি?
উত্তর:- হীরা।

প্রশ্ন:- সবচেয়ে কোমল খনিজ কোনটি?
উত্তর:-:টেলক।

প্রশ্ন:- ধাতুর আকরিক বা ওর কাকে বলে?
উত্তর:- যে খনিজ থেকে ধাতুকে সস্তায় ও সহজে নিষ্কাশন করা সম্ভব তাকে ধাতুর আকরিক বা ওর বলা হয়।

প্রশ্ন:- "কোন ধাতুর একাধিক খনিজ থাকলেও তার সবগুলোই আকরিক নাও হতে পারে"- ব্যাখ্যা করো।
অথবা, "সব আকরিক খনিজ কিন্তু সব খনিজ আকরিক নয়" - ব্যাখ্যা করো।

উত্তর:- যে সমস্ত প্রাকৃতিক ধাতব যৌগ থেকে ধাতু নিষ্কাশন করা যায় তাকে ধাতুর খনিজ বলা হয়। কিন্তু সব ধাতুর খনিজ থেকে সহজে ধাতু নিষ্কাশন সম্ভব নয়। কেবলমাত্র যে সমস্ত খনিজ থেকে সহজে ধাতু নিষ্কাশন সম্ভব সেগুলোকেই আকরিক বলা হয়। কোন ধাতুর একাধিক খনিজ থাকতে পারে তবে সবগুলো থেকে সহজে ধাতু নিষ্কাশন হয় না। তাই সব আকরিক খনিজ হলেও সব খনিজ আকরিক নয়।

প্রশ্ন:- লোহার প্রধান আকরিক এর নাম কি?
উত্তর:- হেমাটাইট।

প্রশ্ন:- অ্যালুমিনিয়ামের প্রধান আকরিকের নাম কি?
উত্তর:- বক্সাইট।

প্রশ্ন:- তামার প্রধান আকরিক এর নাম কি?
উত্তর:- কপার গ্লান্স।

প্রশ্ন:- বক্সাইটে উপস্থিত মৌল গুলির নাম লেখ।
উত্তর:- অ্যালুমিনিয়াম ও অক্সিজেন।

সংকর ধাতু

প্রশ্ন:- সংকর ধাতু কাকে বলে?
উত্তর:- দুই বা তার বেশি ধাতু মিশিয়ে যে ধাতব মিশ্রণ তৈরি করা হয় তাকে সংকর ধাতু বলে। যেমন তামা ও দস্তা মিশিয়ে পিতল তৈরি করা হয়।

প্রশ্ন:- লোহার সঙ্গে ______ মিশিয়ে স্টেনলেস স্টিল তৈরি করা হয়?
উত্তর:- ক্রোমিয়াম।

প্রশ্ন:- ক্রোমিয়াম এর সঙ্গে থাকলে লোহার রাসায়নিক বিক্রিয়া করার ক্ষমতা কিছুটা ______।
উত্তর:- কমে।

জীবাশ্ম বা ফসিল

প্রশ্ন:- জীবাশ্ম বা ফসিল কাকে বলে?

উত্তর:-:মাটির নিচে কোটি কোটি বছর ধরে নানান পরিবর্তন ঘটে চাপা পড়া দেহবাশেষ একসময় পাথরে পরিণত হয়। এই পাথরের দেহবাশেষ গুলো কে জীবাশ্ম বা ফসিল বলে।
লুপ্ত হয়ে যাওয়া কোন জীবের দেহের কোন অংশের ছাপকেও ফসিল বলে।

জীবাশ্ম জ্বালানি বা ফসিল ফুয়েল

প্রশ্ন:- জীবাশ্ম জ্বালানি বা ফসিল ফুয়েল কাকে বলে?
উত্তর:- জীবের দেহবাশেষ পচে যে জ্বালানি তৈরি হয় তাকে জীবাশ্ম জ্বালানি বা ফসিল ফুয়েল বলে। যেমন পেট্রোল , কয়লা ইত্যাদি।

প্রশ্ন:- কি করে পেট্রোলিয়াম আর প্রাকৃতিক গ্যাস তৈরি হয় তা ধাপে ধাপে লেখ।
উত্তর:-

  • অগভীর সমুদ্রের জলের নিচে সামুদ্রিক মৃতদেহ এসে জমা হয়।↓
  • গলিত মৃতদেহের উপর বালি ওbপলি এসে জমা হয়।↓
  • কোটি কোটি বছর ধরে মাটির নিচের গরমে আর চাপে এই পলি বদলে গিয়ে পাললিক শিলা তৈরি হয়।↓
  • জীবের দেহকোষের নানান পরিবর্তন ঘটে তৈরি হয় পেট্রোলিয়াম আর প্রাকৃতিক গ্যাস।

প্রশ্ন:- জীবাশ্ম জ্বালানির ব্যবহার লেখ।

উত্তর:- জীবাশ্ম জ্বালানির নানান ব্যবহার রয়েছে। যেমন-
রাসায়নিক পদার্থ তৈরিতে: বাতাসের অনুপস্থিতিতে কয়লাকে বেশি উষ্ণতায় গরম করা হলে কঠিন অবশেষ তলার গ্যাস পাওয়া যায়। পেট্রোলিয়াম থেকে বহু দরকারি জৈব যৌগ আলাদা করা হয়।

জ্বালানী হিসাবে: বর্তমানে কয়লা পেট্রোল ইত্যাদিকে জ্বালানি হিসেবে ব্যবহার করা হয়। তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে কয়লা পুড়িয়ে তাপ পাওয়া যায় এবং তা থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হয়।

প্রশ্ন:- এলপিজি এর পুরো কথা কি? ( Full form of LPG)
উত্তর:- এলপিজি এর পুরো কথা হলো লিকুইফাইড পেট্রোলিয়াম গ্যাস।

প্রশ্ন:- সিএনজি এর পুরো কথা কি? ( Full Form of CNG)
উত্তর:- সিএনজি এর পুরো কথা হলো কম্প্রেসড ন্যাচারাল গ্যাস।

প্রশ্ন:- প্রাকৃতিক গ্যাসের প্রধান উপাদান কি?
উত্তর:- প্রাকৃতিক গ্যাসের প্রধান উপাদান হলো মিথেন।

প্রশ্ন:- পেট্রোলিয়াম এর দুটি ব্যবহার লেখ।
উত্তর:- পেট্রোলিয়াম এর ব্যবহার:-

  1. পেট্রোলিয়াম জ্বালানি হিসাবে বিভিন্ন যানবাহনে ব্যবহার করা হয়।
  2. পেট্রোলিয়াম শোধনে সময় প্রোপেন বিউটেন জাতীয় জ্বালানি পাওয়া যায়।
  3. পেট্রোল ও পেট্রোলিয়াম জাতীয় যৌব থেকে নানা ধরনের প্লাস্টিক ঘর্ষণ কমাবার তেলরং ইত্যাদি জিনিস তৈরি হয়।

প্রশ্ন:- পেট্রোল ও সিএনজি এর মধ্যে কোনটি কম বায়ুদূষক?
উত্তর:- সিএনজি।

MODEL ACTIVITY TASK

We Delivers & planning to Deliver here

Model Activity task Answer | Class 5 Model Task Answer | Class 6 Model Task Answer | Class 7 Model Task Answer | Class 8 Model Activity | Class 9 Model Activity Answer |Class 10 Model Activity Answer | Madhyamik Model Activity task | Study material | secondary education |wbbse social science contemporary India | 9th social science | free pdf download Bengal board of secondary | state government board of secondary education | chapter 6 population download NCRT | NCRT solutions for class 9 social science | NCRT book west Bengal board higher secondary | NCRT textbooks | west Bengal state class 9 geography | secondary examination physical features CBSE class | Model activity model WBBSE