সমব্যথী প্রকল্প কি ? কারা আবেদন করতে পারবেন ? কত আর্থিক সহায়তা দেওয়া হয় | WB govt Samabathi Prakalpa?

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের একাধিক প্রকল্পের মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্প হল সমব্যথী প্রকল্প। চলুন জেনে নেওয়া যাক কি এই সমব্যথী প্রকল্প ? কোন দপ্তর থেকে দেওয়া হয় এই প্রকল্প ? কত আর্থিক সাহায্য দেয়া হয় সমব্যথী প্রকল্প তে।

সমব্যথী প্রকল্প এর ব্যানার চিত্র


💠 মানুষের পাশে সমব্যথী প্রকল্পপ নিয়ে পশ্চিমবঙ্গ সরকার 💠

প্রকল্পের নাম : সমব্যথী
◾ দপ্তর বা বিভাগের নাম : পুর ও নগরোন্নয়ন দপ্তর এবং পঞ্চায়েত ও গ্রামন্নয়ন দপ্তর।
প্রকল্পের উদ্দেশ্য : পরিবারের অতি আপনজন, নিকটাত্মীয় কিংবা পাড়ায় দীর্ঘদিনের পরিচিত প্রতিবেশীর মৃত্যু ঘটেছে। শোকাতুর পরিবার। পাড়ায়, গ্রামে, মহল্লায় শোকের ছায়া। একই সঙ্গে আরও একটি চিন্তা পারলৌকিক ক্রিয়াকর্ম বা কবর দেওয়ার খরচ কী করে জোগাড় হবে। পাশে দাঁড়িয়েছে রাজ্য সরকার।

এই প্রকল্পের দ্বারা দুস্থ পরিবারের কোনও ব্যক্তির মৃত্যুর পর  পারলৌকিক ক্রিয়ায় মৃতদেহের সৎকার, কবরস্থ বা অন্যান্য প্রচলিত রীতিনীতি পালন করার জন্য মৃতের খুব কাছের কোনও আত্মীয়কে এককালীন ২ হাজার টাকা আর্থিক অনুদান দেওয়া হচ্ছে।অর্থাৎ, দুস্থ মানুষের মৃত্যুতে ও সমব্যথী রাজ্য সরকার।

কারা আবেদন করতে পারবেন : মৃতের পরিবারকে অবশ্যই পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দা এবং আর্থিকভাবে দুর্বল বা দুস্থ হতে হবে। মৃত ব্যক্তির শেষকৃত্য অর্থাৎ দাহ বা কবরের কাজ পশ্চিমবঙ্গের মধ্যে করতে হবে। মৃতের পরিবারের সদস্য বা নিকট প্রতিবেশীকে মৃত্যুর প্রমাণের সমস্ত কাগজপত্র দাখিল করতে হবে।

যোগাযোগ: পঞ্চায়েত এলাকায় গ্রাম পঞ্চায়েত অফিস আর পৌর এলাকায় পৌরসভারঅমা অফিসেরধ্যমে এই সহায়তা দেওয়া হচ্ছে। শ্মশান/কবরস্থানে পরিষ্কার সাদা কাগজে মৃত্যুর প্রমাণপত্র-সহ আবেদন করলে এই অনুদান নগদে পাওয়া যাচ্ছে। নিকটাত্মীয় না থাক নিকট প্রতিবেশীও আবেদন করতে পারবেন।
পরিশেষে এটাই বলতে চাই নিজেদের আপনজনকে হারানোর ব্যথা কথাই বা লেখার মাধ্যমে প্রকাশ করা সম্ভব না। কাউকে যেন এই প্রকল্পের সহায়তায় যেন নিতে না হয় এমনটাই ঈশ্বরের কাছে প্রার্থনা রাখবো আমরা সবাই।